শুক্রবার ১০ জুলাই ২০২০
Online Edition

জেএফএ কাপের কো-স্পন্সর ওয়ালটন

স্পোর্টস রিপোর্টার :  জাপান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের ( জেএফএ) পৃষ্ঠপোষকতায় কাল  থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ‘জেএফএ অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা জাতীয় ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ-’ এর আঞ্চলিক পর্ব। এই টুর্নামেন্টের  কো-স্পন্সর হিসেবে রয়েছে ওয়ালটন গ্রুপ। এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো এই টুর্নামেন্টের সঙ্গে সম্পৃক্ত হল ওয়ালটন। আগামীকাল  থেকে দেশের ছয়টি ভেন্যুতে শুরু হবে এই টুর্নামেন্টের আঞ্চলিক পর্ব। ছয় ভেন্যুর ছয় চ্যাম্পিয়ন এবং তাদের সঙ্গে সেরা দুই রানার্স-আপসহ মোট ৮টি দল আসবে ঢাকায়। তাদের নিয়ে ঢাকায় আয়োজিত হবে ‘জেএফএ অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা জাতীয় ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ-২০১৭’ এর মূলপর্ব। আঞ্চলিক পর্বের ভেন্যু ফি দেওয়া হবে ৩০ হাজার টাকা। আঞ্চলিক পর্বে অংশ নেওয়া প্রত্যেকটি দল ১৫ হাজার টাকা করে অংশগ্রহণ ফি পাবে। আর মূলপর্বে অংশ নেওয়া প্রত্যেকটি দল ২০ হাজার টাকা করে অংশগ্রহণ ফি পাবে। এ ছাড়া আঞ্চলিক পর্বে ৫ হাজার টাকা করে উইনিং মানি  দেওয়া হবে। চূড়ান্তপর্বের চ্যাম্পিয়ন দল ৫০ হাজার ও রানার্স-আপ দল ২৫ হাজার টাকা প্রাইজমানি পাবে। গতকাল এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানোর জন্য এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সদস্য ও মহিলা ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ, ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর (গেমস এন্ড স্পোর্টস) এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন), বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ, সদস্য অমিত খান শুভ্র ও বাফুফে মহিলা কমিটির অন্যান্য সদস্যগণ। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সদস্য ও মহিলা ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান মিস মাহফুজা আক্তার কিরণ বলেন, ‘২৪ এপ্রিল থেকে ছয়টি ভেন্যুতে শুরু হবে জেএফএ কাপের এবারের আসর। যেখানে ৩৫টি দল অংশ নিবে। মূলপর্ব হবে লিগ পদ্ধতিতে। আঞ্চলিক পর্বের ভেন্যুগুলোর মধ্যে রয়েছে গাজীপুর, গোপালগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর, খুলনা, নীলফামারী ও রাজশাহী। আঞ্চলিক পর্বের খেলার পর ৩০ এপ্রিল থেকে হবে মূলপর্বের খেলা। মূলপর্ব হবে ঢাকায়। মাঠ এখনো প্রস্তুত না হওয়ায় গাজীপুর ভেন্যুর খেলা শুরু হবে ২৫ এপ্রিল থেকে। এবারও এই টুর্নামেন্টের কো-স্পন্সর হিসেবে আছে ওয়ালটন গ্রুপ। তারা সব সময়ই আমাদের পাশে আছে। সে জন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই।’ জেএফএ অনূর্ধ্ব-১৪ মহিলা জাতীয় ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ-২০১৮’ এর গাজীপুরের শহীদ বরকত উল্লাহ স্টেডিয়ামে লড়বে ময়মনসিংহ জেলা, জামালপুর জেলা, মানিকগঞ্জ জেলা, টাঙ্গাইল জেলা, শেরপুর জেলা ও গাজীপুর জেলা। গোপালগঞ্জের শেখ মনি স্টেডিয়ামে লড়বে রাজবাড়ী জেলা, ফরিদপুর জেলা, মাদারীপুর জেলা, মাগুরা জেলা, শরীয়তপুর জেলা ও গোপালগঞ্জ জেলা। লক্ষ্মীপুর জেলা স্টেডিয়ামে খেলবে  নোয়াখালী জেলা, ফেনী জেলা, হবিগঞ্জ জেলা ও লক্ষ্মীপুর জেলা। খুলনার মেট্রোপলিটন পুলিশ লাইন মাঠে লড়বে করবে যশোর জেলা, বরগুনা জেলা, নড়াইল জেলা, পটুয়াখালী জেলা, চুয়াডাঙ্গা জেলা ও খুলনা জেলা। নীলফামারী জেলা স্টেডিয়ামে খেলবে কুড়িগ্রাম জেলা, পঞ্চগড় জেলা, দিনাজপুর জেলা, ঠাকুরগাঁও জেলা, রংপুর জেলা, লালমনিরহাট জেলা ও নীলফামারী জেলা। রাজশাহীর মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি জেলা স্টেডিয়ামে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে ছয়টি দল। দলগুলো হল- গাইবান্ধা, জয়পুরহাট, বগুড়া, নওগাঁ, সিরাজগঞ্জ ও রাজশাহী জেলা। প্রতিটি ম্যাচ হবে ৭০ মিনিটের (৩৫+৩৫)। ১০ মিনিটের বিরতি থাকবে। নির্ধারিত সময়ের খেলা অমিমাংসিত থাকলে সরাসরি টাইব্রেকারে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ