শুক্রবার ০৩ জুলাই ২০২০
Online Edition

টালমাটাল ভেনেজুয়েলা সীমান্ত সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ৪

রয়টার্স : কাঁদুনে গ্যাস ও রাবার বুলেট ব্যবহার করে ভেনেজুয়েলার সীমান্ত থেকে বিদেশী ত্রাণবাহী গাড়িবহর ফিরিয়ে দিয়েছে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর অনুগামী সেনারা। শনিবারের এ ঘটনায় চার প্রতিবাদকারী নিহত হয়েছেন বলে। দেশটির বিরোধীদলের সমর্থকরা সীমান্তে সেনাপ্রতিরোধ ভাঙতে ব্যর্থ হওয়ার পর মার্কিন খাদ্য ও ওষুধবাহী ট্রাকগুলো কলম্বিয়ার গুদামগুলোতে ফিরে যায়। সেনাপ্রতিরোধ ভাঙার চেষ্টাকালে বহু বিক্ষোভকারী আহত হন।

সেনাদের পাশাপাশি মুখোশ ও বেসামরিক পোশাক পরা কিছু লোকও প্রতিবাদকারীদের দিকে গুলী ছুঁড়েছে বলে দাবি প্রত্যক্ষদর্শীদের। বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদোর প্রতি সমর্থন দেওয়ায় প্রেসিডেন্ট মাদুরো কলম্বিয়ার সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা দিয়ে দেশটির কূটনীতিকদের ভেনেজুয়েলা ত্যাগের জন্য ২৪ ঘন্টা সময় দিয়েছেন। কলম্বিয়ার কুকুতা শহর থেকে ত্রাণবাহী ট্রাকগুলো রওনা হওয়ার পর এর একটিতে উঠেছিলেন গুইদো, অধিকাংশ পশ্চিমা দেশ যাকে ভেনেজুয়েলার বৈধ নেতা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। গুইদো সীমান্তের কলম্বিয়ার পাশের তিয়ানদিতাস সেতু পরিদর্শন করেন। এ সময় তার সঙ্গে কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভান দুকেও ছিলেন বলে খবর বিবিসির।

বিরোধীদলের আশা ছিল সৈন্যরা হয়তো ত্রাণ সরবরাহ ফিরিয়ে দিবে না। কলম্বিয়ার দাবি অনুযায়ী এ দিন ভেনেজুয়েলার নিরাপত্তা বাহিনীর ৬০ জনের মতো সদস্য পক্ষ ত্যাগ করলেও দেশটির ন্যাশনাল গার্ডের সেনারা সীমান্তে লাইন দিয়ে দৃঢ়ভাবে দাঁড়িয়ে থাকে এবং ত্রাণবাহী গাড়িবহরের দিকে কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করে।

উরেনা সীমান্তে সেনাদের কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপের পর দুটি ত্রাণবাহী ট্রাকে আগুন ধরে যায়। ভেনেজুয়েলার সীমান্ত শহর সান আন্তোনিও ও উরেনায় কয়েকজন আইনপ্রণেতাসহ বিরোধীদলের সমর্থকরা জাতীয় পতাকা হাতে ‘মুক্তি’, ‘মুক্তি’ শ্লোগান তুলে সীমান্তের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় সেনারা তাদের দিকে রাবার বুলেট ছুঁড়ে। উরেনার প্রতিবাদকারীরা রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখায় ও নিরাপত্তা বাহিনীর দিকে পাথর নিক্ষেপ করে। 

এ সময় তারা একটি বাসে আগুন দেয়। প্রায় ডজন খানেক ত্রাণবাহী ট্রাক ভেনেজুয়েলায় প্রবেশের চেষ্টা করলেও এসব ঘটনার পর অন্তত ছয়টি ট্রাক কুকুতায় ফিরে যায়। এসব ট্রাকের মালামাল আনলোড করে গুদামজাত করে রাখা হবে বলে জানিয়েছে কলম্বিয়ার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা। গুইদো ফের এসব ত্রাণ ব্যবহার করতে চাইলে আবার পাঠানো হবে বলে জানিয়েছে তারা। পরে কলম্বিয়া থেকে গুইদো জানিয়েছেন, ত্রাণগুলো দেশে প্রবেশ করতে দেওয়ার জন্য মাদুরোর প্রতি দাবি জানিয়ে যাবেন তিনি এবং অন্যকোনো পথে দেশে ত্রাণ ঢুকানোর চেষ্টা করবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ