শনিবার ০৮ আগস্ট ২০২০
Online Edition

চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের হাজী মুহাম্মদ মহসীন স্মরণে আলোচনাসভা

চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের উদ্যোগে শিক্ষার মহান সেবক, অসংখ্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা, দানবীর, পরোপকারী এবং মানব হৈতেষীব্যক্তি হাজী মুহম্মদ মুহসীনের ২০৪তম জন্মদিন  উপলক্ষে শিক্ষার মহানসেবক হাজী মুহম্মদ মুহসীন আমাদের প্রেরণার বাতিঘর শীর্ষক এক আলোচনা অনুষ্ঠান সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুর রহিমের সভাপতিত্বে গত ২৯ নভেম্বর বিকাল ৫টায় চকবাজারস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। এতে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগনেতা শাহেদুল ইসলাম সাহেদ, মোস্তাক আহমদ টিপু, সাবেক ছাত্রনেতা আতিকুর রহমান চৌধুরী, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কবি আসিফ ইকবাল, চকবাজার ওয়ার্ড যুবলীগনেতা বিশ্বজিৎ দাশ বিশু, মহানগর ছাত্রলীগনেতা বোরহান উদ্দিন গিফারী, সাইমন খান, ইয়াছির, সাজিদ, ফরহান মাহমুদ, প্রত্যয় দাশ, জাদিব, জয়ন্ত বিশ্বাস, অভ্র, স্বাধীন, মাহফুজ, অন্তু দাশ, তাহসিন প্রমুখ। সভায় বক্তারা বলেন, দানবীর এবং শিক্ষার মহান সেবক হাজী মুহম্মদ মুহসীন শিক্ষা ক্ষেত্রে পৃথিবীর ইতিহাসে একটি কালজয়ী নাম। যিনি আজীবন শিক্ষা এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ার জন্য অকাতরে দান করে গেছেন। যার উদ্যোগে তৎকালীন সময়ে বহু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। আজ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ঐসমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা নানা ভাবে প্রতিষ্ঠিত। চট্টগ্রাম হাজী মুহম্মদ স্কুল, কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হাজী মুহাম্মদ মুহসীনের আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতায় গড়ে উঠেছে। আজকের দিনে শিক্ষার উন্নয়নে হাজী মুহম্মদ মুহসীনের অবদান অনস্বীকার্য। হাজী মুহম্মদ মুহসীনরা যুগে যুগে মানুষের কল্যাণে এবং প্রকৃত সেবক হিসেবে নীরবে মানব সেবা করে গেছেন। হাজী মুহম্মদ মহসীনের জীবন থেকে আমরা প্রত্যেকেই শিক্ষা গ্রহণ করতে পারি। শিক্ষার কোন বয়স নেই তাই আমাদের প্রত্যেক সামর্থ্যবান ব্যক্তিদের উচিত শিক্ষার জন্য অবদান রেখে যাওয়া। যাতে করে আমাদের দেশের প্রতিটি মানুষ শিক্ষার আলোয় আলোকিত এবং মহৎ মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারে।                         -দিমান দাশ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ