বৃহস্পতিবার ২৮ মে ২০২০
Online Edition

ফেনীতে অব্যবস্থাপনায় প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন

ফেনী সংবাদদাতা: ফেনীতে অব্যস্থাপনার মধ্য দিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সমাপনী খাতা মূল্যায়ন ও নিরীক্ষা করা হয়েছে। 

কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পঞ্চম শ্রেণীর গুরুত্বপূর্ণ একটি পরীক্ষার খাতা ফেনী সরকারি পাইলট প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩ শতাধিক শিক্ষক গাদাগাদি করে বসে মূল্যায়ন করায় সঠিকভাবে মেধা যাচাই হচ্ছে না বলে শিক্ষক ও অভিভাবকরা অভিযোগ করেছেন।

শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়, বিভিন্ন বিদ্যালয় থেকে প্রতি বিষয়ে ৪৯ জন করে মোট ২শ’ ৯৪ জন পরীক্ষক, প্রতি বিষয়ে ২০ জন করে মোট ১শ’ ২০ জন নিরীক্ষক, ১৩ জন প্রধান পরীক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। নিয়োগ করা পরীক্ষকরা ফেনী সরকারি পাইলট প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবনের ৪টি কক্ষে অব্যবস্থাপনার মধ্যে খাতা মূল্যায়ন করেছেন। তড়িঘড়ি ও দ্রুত খাতা দেখায় ভালো শিক্ষার্থীর খাতা ও নম্বর দেওয়া সঠিকভাবে হচ্ছে না বলে শিক্ষক ও অভিভাবকরা অভিযোগ করেছেন। স্থান সংকুলান না হওয়ায় পুরনো ভবন ও এসেম্বলি হলে বসে ও দাঁড়িয়ে কোনরকম কাগজ মূল্যায়ন করেন। একজন নিরীক্ষক দুই দিনে প্রতি বিষয়ে ৫শ খাতা মূল্যায়ন করেন। একই সময়ের মধ্যে একজন প্রধান পরীক্ষক ৫ হাজার খাতা নিরীক্ষা করেন। 

২৯ নভেম্বর থেকে ৪ দিনে জেলার ১০ হাজার পরীক্ষার্থীর খাতা মূল্যায়ন ও দুইদিনের মধ্যে উল্লেখিত খাতা নিরীক্ষা করা হয়। 

গত রবিবারও উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ও বারান্দায় বসে পরীক্ষার খাতা নিরীক্ষা করা হয়। স্থান সংকুলান না হওয়ায় কিছু শিক্ষককে খাতা নিরীক্ষার জন্য তৎসংলগ্ন সুলতানপুর আমিন উল্লাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্থানান্তর করা হয়।

চাইলে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিলকিস আরা বলেন, সংশ্লিষ্ট বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী স্বল্প সময়ের মধ্যে আমাদের কাজ করতে হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ