মঙ্গলবার ০৭ জুলাই ২০২০
Online Edition

টুইটারে ট্রাম্পের উদ্দেশ্যে সিরীয় বালিকার খোলা চিঠি

২৫ জানুয়ারি, বিবিসি : “সিরিয়ার শিশুদের জন্য আপনাকে কিছু করতেই হবে। কারণ তারা আপনার সন্তানদের মতোই। তারাও আপনার মতো শান্তিতে থাকার অধিকার রাখে”।
আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে এক খোলা চিঠিতে একথা লিখেছে টুইট করে খ্যাতি পাওয়া সিরিয় বালিকা বানা আলাবেদ।
গত ডিসেম্বর মাসে আলেপ্পো থেকে যখন আটকে পড়া মানুষ জনকে উদ্ধার করা হচ্ছিল তখন পরিবারের সাথে উদ্ধার পায় বানা আলাবেদও। এখন সে তুরস্কে বসবাস করছে। অবরুদ্ধ আলেপ্পো থেকে বানা নিয়মিত টুইট করত। এসময় তার টুইটার অ্যাকাউন্ট বিশ্বজোড়া খ্যাতি পায়।
বানার মা ফাতেমা বিবিসির কাছে সেই চিঠির বক্তব্য পাঠিয়েছেন এবং বলেছেন বানা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের শপথের আগেই চিঠিটি লিখেছে।
বানা আলাবেদের চিঠি:
প্রিয় ডোনাল্ড ট্রাম্প,
আমার নাম বানা আলাবেদ এবং আমি সিরিয়ার আলেপ্পোর সাত বছরের এক বালিকা।
আমি গত বছর ডিসেম্বর মাসে অবরুদ্ধ পূর্ব আলেপ্পো থেকে পালিয়ে আসার আগ পর্যন্ত সিরিয়াতেই থাকতাম।
আমি সিরিয়ার সেইসব শিশুদের অংশ যারা সিরিয় যুদ্ধের ফল ভোগ করছে।
কিন্তু এখন তুরস্কের নতুন এক বাড়িতে আমি শান্তিতে আছি।
আলেপ্পোতে থাকার সময় আমি স্কুলে পরতাম, কিন্তু‘ সেটা বোমা হামলায় ধ্বংস হয়ে গেছে।
আমার কিছু বন্ধু সেখানে মারা গেছে।
এজন্য আমার খুব দু:খ। তারা আমার সাথে এখানে থাকলে আমরা একসাথে খেলতে পারতাম।
আমি আলেপ্পোতে থাকতে খেলতে পারতাম না। সেটা ছিল এক মৃত্যুপুরী।
এখন তুরস্কে আমি বাইরে যেতে পারি এবং মজা করতে পারি।
আমি স্কুলেও যেতে পারি, যদিও এখনো যাওয়া শুরু করিনি।
একারণেই সবার জন্য শান্তি গুরুত্বপূর্ণ, আপনার জন্যও গুরুত্বপূর্ণ।
যাইহোক, সিরিয়ার লাখ লাখ শিশু এখনো আমার মত শান্তিতে নেই।
তারা সিরিয়ার বিভিন্ন অঞ্চলে যুদ্ধের কুফল ভোগ করছে।
তারা ভোগান্তিতে আছে বড় মানুষদের কারণে।
আমি জানি আপনি আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হবেন, আপনি দয়া করে সিরিয়ার জনগণ ও শিশুদের রক্ষা করুন।
কারণ তারা আপনার সন্তানদের মতোই। তারাও আপনার মতো শান্তিতে থাকার অধিকার রাখে।
আপনি যদি প্রতিশ্রুতি দেন আপনি সিরিয়ার শিশুদের জন্য কিছু করবেন, তাহলে ধরে নেন আমি আপনার একজন নতুন বন্ধু।
আপনি সিরিয়ার শিশুদের জন্য কী করবেন, তা দেখার অপেক্ষায় রইলাম।
সিরিয়া ইস্যুতে ট্রাম্পের অবস্থান:
বানা আলাবেদরা তুরস্কে বসে সিরিয়ার বিদ্রোহীদের পক্ষেই প্রচারণা চালাচ্ছে।
কিন্তু সিরিয়া ইস্যুতে ডোনাল্ড ট্রাম্প এখনো তার অবস্থান পষ্ট করেননি।
তিনি রাশিয়ার সাথে শক্তিশালী সম্পর্ক গড়ার আগ্রহ সব সময়েই ব্যক্ত করে আসছেন।
সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদকে সমর্থন দেয়া রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকেও তিনি অনুমোদন করেছেন।
নির্বাচনী প্রচারণা চলাকালে সিরিয়ার বিদ্রোহীদের সহায়তা দেয়া বন্ধ করে দেয়া হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেছিলেন।
কিন্তু অতি সম্প্রতি তিনি সিরিয়ায় ‘সেফ জোনের’ গুরুত্ব তুলে ধরেছেন যেটা বিদ্রোহী বাহিনীকেই সহায়তা করবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ