রবিবার ৩১ মে ২০২০
Online Edition

খুমেক হাসপাতালের আরএমওসহ তিন চিকিৎসককে লিগ্যাল নোটিশ

খুলনা অফিস : পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা রোগীর শরীরে কোন জখম না পেলেও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা ওই রোগীকে গুরুতর জখমী বলে চিকিৎসা সনদ দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তথ্যে গরমিলের অভিযোগ এনে উপযুক্ত জবাব প্রদান অথবা এক লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার-আরএমওসহ তিন চিকিৎসককে লিগ্যাল নোটিশ দেয়া হয়েছে।
লিগ্যাল নোটিশের সূত্রে জানা গেছে, পাইকগাছা উপজেলার গোপালপুর গ্রামের সহিল উদ্দিন মিস্ত্রীর ছেলে আজিবুর রহমানের সাথে তার প্রতিবেশী আব্দুল মজিদ গাজীর জমাজমি সংক্রান্ত গোলমাল হয়। অতঃপর গত ১৯ ডিসেম্বর সকালে আব্দুল মজিদ পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। তবে তার শরীরে কোন জখম ছিল না। ওই দিনই আব্দুল মজিদ পাইকগাছা হাসপাতালের ছাড়পত্র নিয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরবর্তীতে ২৪ ডিসেম্বর খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার শেখ সুফিয়ান রুস্তম ও মেডিকেল অফিসার শেখ মো. জাকারিয়া এবং মেডিকেল অফিসার অজয় কুমার সাহা আব্দুল মজিদ গুরুত্বর জখম মর্মে ‘গ্রিভিয়াস হার্ড ইন নেচার’ মর্মে চিকিৎসা সনদ প্রদান করেন। ফলে ওই ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামি আজিবুর রহমানসহ অন্যরা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রুস্ত ও হয়রানি হন।
ক্ষতিগ্রস্তের পক্ষে নোটিশ প্রেরণকারী আইনজীবী ও মানবাধিকার কর্মী এফ, এম, এ, রাজ্জাক বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত আজিবুর রহমানের পক্ষে ৯ ফেরুয়ারি লিগ্যাল নোটিশ প্রেরণ করা হয়েছে। নোটিশে সাত দিনের মধ্যে উপযুক্ত কারণ দর্শানো অথবা এক লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়েছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে জবাব অথবা ক্ষতিপূরণ না দিলে আদালতে ক্ষতিপূরণের মামলা দায়ের করা হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ