শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

‘আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উচিত ফিলিস্তিনীদের ওপর নিষ্ঠুরতা বন্ধে ইসরাইলকে বাধ্য করা’

২২ জুলাই, আনাদোলু নিউজ এজেন্সি : আরব ইউনিয়ন অসহায় ফিলিস্তিনীদের ওপর ইসরাইলী পুলিশের নিষ্ঠুর হামলাসহ ইহুদিদের অযৌক্তিক কার্যকলাপের নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তা বন্ধের দাবি জানিয়েছে।
আরব ইউনিয়ন এক বিবৃতিতে বলেছে, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উচিত ইসরাইলকে এই ধরনের কাজ বন্ধ করতে বাধ্য করাসহ জেরুজালেমে সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধাশীল করা।
এদিকে আল-আকসা মসজিদের দরজায় মেটাল ডিটেক্টর স্থাপন এবং ৫০ বছরের কম বয়সী পুরুষ মুসলিমদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার ঘটনায় মিসর কর্তৃপক্ষ ইসরাইলকে এসব অযৌক্তিক কার্যকলাপ বন্ধ করার মাধ্যমে উত্তেজনা প্রশমিত করার আহ্বান জানিয়েছে।
মিশরের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জেরুজালেমে এবং আল-আকসা মসজিদের আশেপাশে ফিলিস্তিনীদের বিরুদ্ধে ইসরাইলী পুলিশের অযৌক্তিক বলপ্রয়োগ করার ঘটনায় ভীষণ উদ্বিগ্ন মিশর।
বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ইসরাইল সরকারের উচিত একটি যুক্তিসঙ্গত পদক্ষেপ নেয়া যাতে তারা ফিলিস্তিনীদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে পারে।
উল্লেখ্য, গতসপ্তাহে গোলাগুলীর ঘটনার পর ১৪ জুলাই শুক্রবার ইসরাইলী কর্তৃপক্ষ আল-আকসা মসজিদে জুম্মার নামায বাতিল করে দেয়। প্রায় ৫০ বছর পর এই প্রথম পবিত্র মসজিদটিতে মুসলিমরা জুম্মার নামায আদায় করতে পারলো না।
এছাড়া বর্তমানে আল-আকসা মসজিদের প্রধান প্রবেশদ্বারে মেটাল ডিটেক্টর স্থাপন এবং ৫০ বছরের কম বয়সী পুরুষ মুসলিমদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে দখলদার ইসরাইল। এতে ইসরাইলী পুলিশের গুলীতে  তিনজন ফিলিস্তিনী নিহত এবং শত শত আহত হয়েছে।
এর আগে ইসরাইলী পুলিশ জানায়, আল-আকসা প্রাঙ্গণে প্রবেশ করতে পারবেন না ৫০ বছরের কম বয়সী পুরুষ মুসলিমরা।
ইসরাইল অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমে অবস্থিত আল-আকসা মসজিদে প্রবেশের প্রধান দ্বার লায়ন্স গেটের সামনে মেটাল ডিটেক্টর বসানোর প্রতিবাদে কয়েক দিন ধরেই বাইরে নামায পড়ছিলেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ফিলিস্তিনী ও ইসরাইলী আরবরা।
ইসরাইলের এমন উদ্যোগকে আল-আকসার উপর নিয়ন্ত্রণের চক্রান্ত হিসেবে আখ্যায়িত করেছে ফিলিস্তিনীরা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ