বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

চলনবিলে তীব্র শীতে ৬ জনের মৃত্যু ॥ জীবন যাত্রা ব্যাহত

তাড়াশ: চলনবিল ঘন কুয়াশায় ঢাকা পড়েছে -সংগ্রাম

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা: সিরাজগঞ্জ নাটোর,ও পাবনায় তীব্র শীতের প্রভাবে অ্যাজমা রোগাক্রান্ত হয়ে এক নারীসহ ৬ জনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।
পাবনা জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। মৃত ব্যাক্তিদের বয়স ৫০ থেকে ৮৫ বছরের মধ্যে।
এছাড়াও অ্যাজমা ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন অর্ধশতাধিক রোগী। সেই সাথে জীবন যাত্রা হয়ে উঠেছে অসনীয়।
হাসপাতালের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, শীত ও অ্যাজমা রোগাক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন, জেলার আতাইকুলা থানার ভুলবাড়িয়া গ্রামের ওসমান প্রামাণিকের ছেলে আবু বক্কার প্রামাণিক (৮৫), একই থানার বনগ্রামের মনির হোসেনের স্ত্রী খোরশেদা খাতুন (৫৫) ও একই এলাকার কুদরতের ছেলে মনসুর আলী (৫৫), পাবনা সদরের দ্বীপচর এলাকার লজের প্রামাণিকের ছেলে লোকমান প্রামাণিক (৭৫), আটঘরিয়া উপজেলার পারখিদিরপুর গ্রামের শাহাদত আলীর ছেলে আব্দুল কাদের (৫০) ও সুজানগর উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের হাজী আছির উদ্দিন (৬৫)।
গত ৪৮ ঘণ্টায় শীতজনিত ঠাণ্ডা, কাশি, অ্যাজমা ও ডায়রিয়ায় প্রায় আড়াইশ’ রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এদের মধ্যে ডায়রিয়া ও অ্যাজমায় আক্রান্তই ৫১ জন। চিকিৎসাবস্থায় ৩ দিনের শিশুসহ বিভিন্ন বয়সের ২৭ জন শিশুও রয়েছে। বড়দের মধ্যে অ্যাজমায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন ২৪ জন। এদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।
সকাল থেকে ঘনকুয়াশা আর তীব্র শীতে শহরের বড় বড় বিপণীবিতানগুলো বন্ধ রয়েছে, দেড়িতে খোলা হলেও কর্মচারী সংকট, শীতের কারণে তারা দোকানে আসে না। দু’-একজন কর্মচারী আসলেও সারাদিন মাছি মারার মতো ঘটনা। দোকান একে বারের ক্রেতা শুন্য। তবে হকার্স মার্কেটগুলোতে দোকান খোলার সাথে সাথেই উপচে পড়া ভীর করছেন সব শ্রেণিপেশার মানুষ গরম কাপড় কিনতে। ক্রেতাদের অভিযোগ সুযোগ সন্ধানী বিক্রেতারা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি দাম হাকিয়ে বিক্রি করছেন। দোকানদার জানান বিগত বছর শীতের তীব্রতা কম হওয়ায় অনেক শীতের পন্য অবিক্রিত রয়ে গেছে। অথচ তাদের দোকানভাড়া ও কর্মচারী খরচ ঠিকই গুনতে হয়েছে। যার ফলে তাদের অনেক লোকসান গুনতে হয়েছে।
এ বারে চাহিদার তুলনায় শীতের পন্য কম হওয়ায় বেশি দাম দাম দিয়ে পণ্য কিনতে হচ্ছে, তাই গতবারের চেয়ে দাম একটু বেশি। হান্ডিয়াল প্রেস-ক্লাবের সভাপতি রফিকুল ইসলাম রনি বলেন, এই শীতে হতদরিদ্র মানুষের সহায়তার জন্য সরকারের পাশাপাশি সমাজের বৃত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ