মঙ্গলবার ০৭ জুলাই ২০২০
Online Edition

বিশিষ্ট চিকিৎসক অধ্যাপক মুজিবুর রহমানের মৃত্যুতে  শোকের ছায়া : কালিগঞ্জে সমাহিত

 

গাজীপুর সংবাদদাতাঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক এ্যাপোলো হাসপাতালে কর্মরত দেশের প্রথিতযশা চিকিৎসক অধ্যাপক মুজিবুর রহমান (৫৫) সিংগাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৬ মার্চ রাত ১১ টায় মৃত্যুবরণ করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। মৃতকালে তিনি স্ত্রী, তিন মেয়ে, দুই ভাই ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে যান। তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

ঢাকার ধানমন্ডিতে তার প্রথম জানাযা, এপোলো হাসপাতালে দ্বিতীয় জানাজা এবং বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা ৩০ মিনিটে কালিগঞ্জের নিজ গ্রাম জাংগালিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তৃতীয় জানাজা শেষে তাকে তার পারিবারিক কবরস্থানে সমাহিত করা হয়েছে।

জানাজার পূর্বে সমবেত শোকার্ত জনতার উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন- সাবেক সংসদ সদস্য গাজীপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক জনাব আক্তারুজ্জান, সাবেক সংসদ সদস্য গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক মিলন, সাবেক সচিব শেখ মোতাহার হোসেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এড: মেহেদী হাসান, গাজীপুর মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি ও কালিগঞ্জ উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি মো: খায়রুল হাসান, শিশু ও মহিলা বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকির স্বামী ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান, গাজীপুর চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ডা: আমির হোসেন রাহাত, জাংগালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান গাজী সরোয়ার হোসেন, কুদ্দুস মোল্লা, এডভোকেট ইমরান হোসন, ডাঃ আমিনুল ইসলাম, আঃ জলিল মাষ্টার প্রমুখ। এলাকার সর্বস্তরের হাজারো জনতা তার জানাযায় অংশগ্রহন করেন।

এদিকে তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন গাজীপুর মহানগর জামায়াতের আমীর ও গাজীপুর সিটির মেয়র প্রার্থী অধ্যক্ষ এস এম সানাউল্লাহ, গাজীপুর নগর জামায়াতের সেক্রেটারি ও কালিগন্জ উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি মো: খায়রুল হাসান, জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মাও: শেফাউল হক ও কালিগঞ্জ উপজেলা জামায়াতের আমীর জনাব মোখলেছুর রহমান। এক শোকবার্তায় তারা বলেন-গাজীপুর তথা কালিগঞ্জের কৃতি সন্তান স্বনামধন্য ডা: মুজিবুর রহমানের মৃত্যুতে যে অপূরনীয় ক্ষতি হলো তা পূরন হবার নয়। মহান আল্লাহ তার মানবীয় ত্রুটিগুলো ক্ষমা করুন এবং তার নেক আমলসহ মানবসেবায় যে অবদান রেখেছেন তা কবুল করে জান্নাত দান করুন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ