শুক্রবার ১০ জুলাই ২০২০
Online Edition

নদী রক্ষায় সংশ্লিষ্ট সংস্থার বিরুদ্ধে মামলা করবে কমিশন

গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাপা ও জাতীয় নদীরক্ষা কমিশনের উদ্যোগে ঢাকার চারপাশের নদীদূষণ বিষয়ক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : দেশের সব নদীকে দূষণ ও দখলদারদের হাত থেকে রক্ষায় প্রতি জেলার ডিসির কাছে কয়েক দফা চিঠি দিয়েছে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন। এ ছাড়া নদীর দূষণ কমাতে বিভিন্ন সিটি কর্পোরেশন, বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিকি), ওয়াসাসহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থাকে বারবার চিঠি দেয়া হয়েছে। এসব চিঠিতে যদি কাজ না হয় তাহলে আর দুই-তিন মাস পর এসব সংস্থার বিরুদ্ধে মামলা করবে ওই কমিশন।
এই তথ্য জানিয়েছেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মুজিবুর রহমান হাওলাদার। গতকাল সোমববার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘ঢাকার চারপাশের নদীদূষণ’ বিষয়ক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই তথ্য জানান। এ সভার আয়োজন করে যৌথভাবে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন ও বুড়িগঙ্গা রিভারকিপার।
বাপার সভাপতি ড. আবদুল মতিনের সভাপতিত্বে এ সময় আরও বক্তব্য দেন কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য মো. আলাউদ্দীন, কমিশনের সদস্য শারমিন মর্শেদ। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাপার যুগ্ম-সম্পাদক শরিফ জামিল।
মুজিবুর রহমান হাওলাদার বলেন, ‘দেশের নদীগুলোকে দূষণ ও দখলদারদের হাত থেকে রক্ষা করতে প্রতিটি জেলার ডিসিদের কয়েক দফা চিঠি দিয়েছি। তবে ডিসিরা আইন প্রয়োগে কেন যেনো ভয় পান। এ ছাড়া বিভিন্ন সিটি কর্পোরেশন, বিসিক, ওয়াসাসহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থাকে বা বারবার চিঠি দেয়া হয়েছে। কিন্তু চিঠি দেয়ায় তেমন কাজ হচ্ছে না। আর কমিশনের সুপারিশ করা তথা চিঠি দেয়া ছাড়া সরাসরি অ্যাকশনে যাওয়া কিংবা জবাবদিহি করানোর কিছু নেই। তাই প্রয়োজনে এসব সংস্থার বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে মামলা করবো।
তিনি বলেন, সরকার কমিশন গঠন করে দিয়েছে তবে তেমন কোনো অবকাঠামো নেই। আইন বলে দেয়া হয়েছে, কমিশন কোনো কিছু বাস্তবয়ন বা যারা বাস্তবায়নকারী সংস্থা তাদের জবাবদিহির আওতায় আনার কোনো বিধান রাধা হয়নি। তাই কমিশন চাইলেও তেমন কিছু করতে পারেন না। কমিশনকে আরও ক্ষমতা দেয়া উচিত।
চেয়ারম্যান বলেন, ‘যদি কমিশনকে সেই ক্ষমতা দেয়া হতো তাহলে তিনি নিজে দাঁড়িয়ে থেকে সাভারের ধলেশ্বরী নদী যারা দূষণ করছেন তাদের উচ্ছেদ করতেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ