শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

খুলনা-মাওয়া মহাসড়কে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে চারজন নিহত ॥ আহত ২৫

খুলনা অফিস : খুলনা-মাওয়া মহাসড়কের ফকিরহাট উপজেলার কলমের দোকান নামে এলাকায় বাস-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে চারজন নিহত ও ২৫ জন আহত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে দুঘটনাটি ঘটে। নিহতদের মধ্যে বালুবাহী জাম্পার ট্রাকের চালক কামরুজ্জামান ও বাসযাত্রী খুলনার আড়ংঘাটার মাহমুদুল হাসান জয়ের পরিচয় পাওয়া গেছে। আহতদেরকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ফকিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।
পুলিশ জানায়, দুপুর ১টার দিকে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের একটি যাত্রীবাহী বাস ঘটনাস্থলে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা বালুবাহী একটি জাম্পার ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এসময় ঘটনাস্থলে বালুবাহী জাম্পার ট্রাকের চালক কামরুজ্জামানসহ তিনজন নিহত হয়। পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আড়ংঘাটার মাহমুদুল হাসান জয় মারা যায়। এতে ২৫ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে বাসের হেলপার আবু বক্কারকে আশংকাজনক খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিাসের উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) মাসুদ সরদার জানান, খবর পেয়ে বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিসের ২টি ও খুলনা ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজে অংশ নেয়। আহতদের উদ্ধার করে ফকিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান। তবে নিহত ও আহতদের নাম পরিচয় জানাতে পারেননি।
ডাকাত দলের তিন সদস্য গ্রেফতার : খুলনায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের তিনসদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত সোমবার দিবাগত গভীর রাতে নগরীর আড়ংঘাটা বাইপাস সড়কের তেলিগাতি চিংড়ি খালি ব্রিজ এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো- নগরীর খালিশপুর থানার মুজগুন্নি পোটকা বাজার এলাকার খলিল মুন্সীর ছেলে রুহুল আমীন ওরফে ইয়াছিন (২৮), খানজাহান আলী থানার শিরোমনি গ্রামের গফফার মীরের ছেলে তানভীর মীর (২৫) ও খানজাহান আলী থানার যোগীপোল পশ্চিমপাড়া গ্রামের শাহ মো. আব্দুর রহমানের ছেলে শাহ মো. পারভেজ (২৫)।
আড়ংঘাটার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেবাশীষ রায় জানান, গত সোমবার দিবাগত রাতে আড়ংঘাটা বাইপাস সড়কের তেলিগাতি চিংড়ি খালি ব্রিজ এলাকায় ডাকাতি করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে-এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চলানো হয়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দলের ৭-৮ জন সদস্য পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলে ধাওয়া করে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে দু’টি চাপাতি, তিনটি ধারালো দা, একটি লোহার রড ও একটি রশি উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আড়ংঘাটা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ