সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

মেহেরপুরে মাদ্রাজি ওল চাষ করে লাভবান চাষি

মেহেরপুর সংবাদদাতা : মেহেরপুরে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে চাষ হচ্ছে মাদ্রাজি ওল। পতিত ও বেলে দোঁয়াশ মাটিতে এই মাদ্রাজি ওলের চাষ করে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা। ফলে, প্রতিবছর এই মাদ্রাজি ওল চাষিদের কাছে এখন খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বাজারে চাহিদার পাশাপাশি এর দামও ভাল। 

গত কয়েক বছর ধরে মেহেরপুর জেলায় দেশী ওলের পাশাপাশি বাণিজ্যিকভাবে চাষ হচ্ছে মাদ্রাজি ওলের। মাদ্রাজী জাতের এই ওল চাষে বিঘাপ্রতি ৪০-৫০ হাজার টাকা খরচ করে লক্ষাধিক টাকা পর্যন্ত ঘরে তুলছেন চাষিরা। অতি নরম ও সুস্বাদু হওয়ায় ক্রেতারাও ঝুকছেন মাদ্রাজি এই ওলের প্রতি। তাই দিন দিন বাড়ছে এর কদর। এবার আবহাওয়া ভালো থাকায় প্রতিটি গাছ থেকে ৭-১৫ কেজি পর্যন্ত ওলের ফলন পাচ্ছে চাষিরা। বাজারে এই ওল প্রতি কেজি ৩০-৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। লাভ বেশী হওয়ায় জেলায় দিন দিন বাড়ছে ওল চাষ। কৃষি বিভাগের তথ্যমতে, এ বছর জেলায় ৫০ হেক্টর জমিতে ওল চাষ হয়েছে। 

চাষীরা জানায় আবহাওয়া ভাল হলে বিঘায় উৎপাদন হয় প্রায় দেড়শত মন ওল।

জেলায় ওল চাষ এখন অর্থকরী ফসলে রূপ নিয়েছে। চাষীরা ওল এবং ওলবীজ বিক্রি করে লাভবান হচ্ছে। কৃষি বিভাগ এই চাষ সম্প্রসারণে কাজ করে যাচ্ছে।

দুই মাদককারবারী আটক : মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার কাজীপুর সীমান্ত থেকে ৮ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদককারবারীকে আটক করেছে গাংনীর পীরতলা পুলিশ ক্যাম্পের একটি দল। গতকাল কাজীপুর গোলাম বাজার এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।আটককৃতরা হলেন- গাইবান্ধা সদর উপজেলার কয়াফনিয়া গ্রামের শাহ জামালের ছেলে শাহ মুসলিম ওরফে তামিম (২৪) ও একই জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার শ্রীপতিপুর ছয়ঘরিয়া এলাকার ওয়ারেস মন্ডলের ছেলে নাইম মন্ডল নয়ন (২৩)।গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইদুর রহমান জানান, সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ওই দুই মাদককারবারী দৌলতপুর সীমান্ত থেকে চোরাই পথে গাঁজা নিয়ে কাজীপুর-বামন্দী রোডের গোলাম বাজার এলাকায় গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি দল সেখানে অভিযান চালিয়ে দু’টি লাগেজের ভেতর থেকে ৪ কেজি করে ৮ কেজি গাঁজা উদ্ধার করে। এসময় ওই দুই মাদককারবারীকে আটক করা হয়। তারা নিজেদেরকে গামের্ন্টস কর্মি বলেও দাবি করেন। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ