রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ওলামা-মশায়েখদের সমন্বয়ে কোরআন বিরোধী নারীনীতির ধারাগুলো সংশোধন করতে হবে

কামাল হোসেন আজাদ, কক্সবাজার: চট্টগ্রাম এম.ই.এস বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যাপক ও মাসিক আত-তাওহীদ সম্পাদক ড. আ.ফ.ম. খালিদ হোসেন বলেছেন, সদ্য অনুমোদিত নারী উন্নয়ন নীতি ২০১১ এর বেশ কিছু ধারা কোরআন-সুন্নাহর সাথে সরাসরি সাংঘর্ষিক। এই নারীনীতি মূলত প্রণীত হয়েছে নারীর বৈষম্য বিলোপ সনদের ভিত্তিতে। যার বহু ধারা ধর্মীয় ঐতিহ্য ও মূল্যবোধের সাথে সাংঘর্ষিক। এ কারণে ওআইসিসহ এগারটি মুসলিম দেশ ওই সনদের ব্যাপারে আপত্তি জানিয়েছে। এমনকি বহু অমুসলিম দেশ বিশেষত যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানী, চীন, অস্ট্রেলিয়া, সুইডেনসহ ৩৫টি দেশ সিডো সনদে স্বাক্ষর করেনি। বাংলাদেশের ৮৬% মুসলমানের ধর্মীয় নেতা হচ্ছেন ওলামায়েকেরাম ও পীর-মাশায়েখবৃন্দ। সুতরাং কোন নীতিমালা ও আইন প্রণয়নে তাদের সম্মতি থাকা অপরিহার্য। তিনি দেশের প্রাজ্ঞ ও বরেণ্য ওলামা মাশায়েখদের সমন্বয়ে একটি কমিশন গঠন করার মাধ্যমে কুরআনের সাথে জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতির সাংঘর্ষিক ধারাগুলো চিহ্নিত করে সংশোধন করার জন্য সরকারের হাই কমান্ডের প্রতি আহবান জানান। তিনি হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ কক্সবাজার জেলা শাখার উদ্যোগে কক্সবাজার পাবলিক হল ময়দানে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী ইসলামী মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। এসময় তিনি ইসলাম নারী জাতির প্রতি যে সম্মান ও অধিকার প্রদান করেছে তা সমাজে বাস্তবায়নের জন্য সবিশেষ গুরুত্বারোপ করেন। এতে প্রধান বক্তা ছিলেন, চট্টগ্রাম মাদরাসা দারুল হেদায়ার পরিচালক আল্লামা হাফেজ আজিজুল হক আল-মাদানী। বিশেষ বক্তা হিসেবে তাকরীর পেশ করেন জামেয়া উবাইদিয়া নানুপুরের মুহাদ্দিস মাওলানা হাফেজ আবদুল গফুর, চট্টগ্রাম রাজঘাটা মাদরাসার মুহাদ্দিস মাওলানা ছৈয়দ আলম আরমানী, হাটহাজারী মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা মুফতি হুমায়ুন প্রমুখ। সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ কক্সবাজার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা হাফেজ আব্দুল হক। বিভিন্ন অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ কক্সবাজার জেলা সভাপতি মাওলানা আবুল হাছান, খতীবে আজম রহ. এর সাহেবজাদা মাওলানা হাফেজ সুহাইব নোমানী, প্রবীণ আলেমে দ্বীন মাওলানা শেখ সোলাইমান, মাওলানা আমান উল্লাহ সিকদার। বিশিষ্ট ওলামায়ে কেরামদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-মাওলানা সরওয়ার কামাল আজিজি, মাওলানা ক্বারী জহিরুল হক, মাওলানা মুফতি এনামুল হক, মাওলানা হাফেজ ছালামতুল্লাহ, আলহাজ্ব মাওলানা মোস্তাক আহমদ, মাওলানা মুফতি মোর্শেদুল আলম, মাওলানা মছরুর, মাওলানা ইয়াছিন হাবিব, মাওলানা কাজী জাফর আলম, মাওলনা আবদুল্লাহ জাহাঙ্গীর, মাওলানা মুহাম্মদ হারুন, মাওলানা হাফেজ হারুন, মাওলানা আবদুচ্ছালাম কুদ্ছী, মাওলানা কাজী এরশাদুল্লাহ, মাওলানা মোর্শেদুল হক প্রমুখ। সঞ্চালনায় ছিলেন হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর ও মাওলানা সোহাইল। প্রধান বক্তা মাওলানা হাফেজ আজিজুল হক আল মাদানী বলেছেন, শির্ক-বিদআত ও বিজাতীয় অপসংস্কৃতিতে পুরো দেশ সয়লাব হয়ে গেছে। এমতাবস্থায় সুন্নাতে রাসূল (সাঃ) এর অনুসরণের মাধ্যমে সুন্দর সমাজ প্রতিষ্ঠায় সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। সম্মেলন থেকে কুরআন-সুন্নাহ বিরোধী নারীনীতি, ধর্মহীন শিক্ষানীতি ও ফতোয়া বিরোধী হাই কোর্টের রায় বাতিল করার জন্য সরকারের প্রতি দাবী জানানো হয়। দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি ও উন্নতি কামনায় বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে সম্মেলন সমাপ্ত হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ