ঢাকা, বুধবার 8 February 2012, ২৬ মাঘ ১৪১৮, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৩
Online Edition

সাবেক এমপি জামায়াত নেতা মুফতি আব্দুস সাত্তারের ইন্তিকাল আজ দাফন

স্টাফ রিপোর্টার : জাতীয় সংসদের সাবেক সদস্য বাগেরহাট জেলা জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমীর মুফতি মাওলানা আব্দুস সাত্তার ইন্তিকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন)। সোমবার রাত সাড়ে ১২টায় রাজধানীর একটি হাসপাতালে ইন্তিকাল করেন তিনি। তার বয়স হয়েছিল প্রায় ৮৩ বছর। তিনি বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। তিনি তিন পুত্র ও সাত কন্যাসহ বহু আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন। মুফতি আব্দুস সাত্তার বাগেরহাটের শরণখোলা-মোড়েলগঞ্জ নির্বাচনী এলাকা থেকে দু'বার জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ধানমন্ডি ঈদগাহ ময়দানে মরহুমের প্রথম নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

রাজধানীতে অনুষ্ঠিত মরহুমের নামাজে জানাযায় ইমামতি করেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সিনিয়র নায়েবে আমীর মাওলানা আবুল কালাম মুহাম্মদ ইউসুফ, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মীর কাশেম আলী, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও খুলনা মহানগরী জামায়াতের আমীর অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য এডভোকেট নজরুল ইসলাম, সাইফুল আলম খান মিলন, আমিনুল ইসলাম, আহমদ উল্লাহ ভূঁইয়া, ডা. সৈয়দ আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের, এডভোকেট জসিম উদ্দিন সরকার, মাওলানা যাইনুল আবেদিন, ঢাকা মহানগরী জামায়াতের নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুল হালিম, বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলন ঢাকা মহানগরীর আমীর মাওলানা হেমায়েত উদ্দিন প্রমুখ। রাজধানীতে প্রথম জানাযা শেষে গতকাল বিকেলে মরহুমের লাশ খুলনা শহরে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে দুটি জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। আজ বুধবার সকালে বাগেরহাট, শরণখোলা ও মোড়েলগঞ্জে তিনটি জানাযা শেষে মোড়েলগঞ্জ উপজেলার খাউলিয়া ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

জীবন বৃত্তান্ত : মুফতি আব্দুস সাত্তার বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জের চালিতাবুনিয়া গ্রামের সম্ভ্রান্ত আকন পরিবারে ১৯২৯ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম আলিমুদ্দিন আকন। তিনি মোড়েলগঞ্জের আমতলী মাদরাসায় শিক্ষাজীবন শুরু করে। পরে লক্ষ্মীপুর জেলার টুমচর মাদরাসা ও ছারছিনা কামিল মাদরাসায় শিক্ষা জীবন সমাপ্ত করেন। পরে পাকিস্তান আমলে বৃহত্তর বরিশাল জেলা জামায়াতের আমীর ছিলেন। সেখানে ১৯৬৯ সাল এবং পরে ১৯৭০ সাল থেকে বৃহত্তর খুলনার জেলা আমীরের দায়িত্ব পালন করেন। ইতঃপূর্বে তিনি জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এই বর্ণাঢ্য জীবনে তিনি বাগেরহাট আলিয়া মাদরাসা, খুলনা নেছারিয়া কামিল মাদরাসা ও চুয়াডাঙ্গা আলিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ হিসেবে দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি বহু মসজিদ, মাদরাসা, স্কুল ও কলেজের প্রতিষ্ঠার সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাগেরহাট-৪ আসন (মোড়েলগঞ্জ-শরণখোলা) জামায়াতে ইসলামীর প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০১ সালে চারদলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে দ্বিতীয়বারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

আমাদের খুলনা অফিস জানায়, গতকাল মঙ্গলবার বাদ মাগরিব খুলনা মহানগরীর মুজ গুন্নীস্থ নেছারিয়া কামিল মাদরাসার প্রাঙ্গণে মরহুমের দ্বিতীয় নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর খুলনা অঞ্চলের পরিচালক মুহাদ্দিস আব্দুল খালেক জানাযা নামাজে ইমামতি করেন। এ সময় খুলনা মহানগরী জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর মাওলানা আবুল কালাম আজাদ, খুলনা আলিয়া মাদরাসার মুহাদ্দিস মাওলানা মনোয়ার হোসাইন মাদানী, নেছারিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, দারুল কুরআন সিদ্দিকীয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ইদ্রিস আলী, তালিমুল মিল্লাত রহমাতিয়া ফাযিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা এএফএম নাজমুস সউদ, মাওলানা আ ন ম আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা আবু বক্কর সিদ্দিকসহ আলেম, ওলামা, ভক্ত, ইসলামী আন্দোলনের কর্মী ও আত্মীয়স্বজনসহ এলাকার সহস্রাধিক মানুষ নামাজে জানাযায় অংশগ্রহণ করেন। এশা বাদ নগরীর দৌলতপুর থানাধীন মহেশ্বরপাশাস্থ মরহুমের নিজ বাড়িতে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। রাতে সেখানে মরহুমের কফিন সংরক্ষণ করা হয়। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ৮ টায় মরহুমের কফিন বাগেরহাটে নেয়া হবে। সেখানে বাগেরহাট শহরে একটি নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর শরণখোলা ও মোড়েলগঞ্জ উপজেলার খাউলিয়া ইউনিয়নের চালতাবুনিয়া গ্রামে নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে বলে পরিবারের সদস্যরা জানান।

বাগেরহাট সংবাদদাতা জানান, মুফতি মাওলানা আব্দুস সাত্তারের নামাযে জানাযা আজ সকাল ৮টায় বাগেরহাটে খানজাহান আলী আদর্শ আলিম মাদরাসা প্রাঙ্গণে, ১০টায় মোড়েলগঞ্জের দৈবজ্ঞহাটিতে, ২টায় এসএম কলেজ মাঠ, বিকাল ৩টায় শরণখোলা রাজৈর মাদরাসা এবং ৪টায় সন্ন্যাসী কলেজ মাঠে শেষে আজ বুধবার তার জন্মস্থান মোড়েলগঞ্জ উপজেলার খাউলিয়া ইউনিয়নের ওলামাগঞ্জ গ্রামে বাদ আসর দাফন করা হবে।

শোক প্রকাশ

বাগেরহাট জেলা জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমীর ও জাতীয় সংসদের সাবেক সদস্য মুফতি মাওলানা আব্দুস সাত্তারের ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর মকবুল আহমাদ ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান গতকাল এক শোকবাণী প্রদান করেছেন। বাণীতে বলা হয়, ‘‘বাগেরহাট জেলা জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমীর ও জাতীয় সংসদের সাবেক সদস্য মুফতি মাওলানা আবদুস সাত্তারের ইন্তিকালে আমরা গভীর শোক প্রকাশ করছি। তার ইন্তিকালে আমরা একজন খ্যাতিমান আলেমে দ্বীনকে হারালাম। মরহুম সারা জীবন ইসলামী শিক্ষা বিস্তার ও আল্লাহর জমিনে আল্লাহর দ্বীন কায়েমের জন্য সংগ্রাম করে গিয়েছেন। বাগেরহাট ও খুলনা-বরিশাল অঞ্চলে জামায়াতে ইসলামীর কাজের উন্নতি অগ্রগতির পেছনে মরহুম বিরাট অবদান রেখে গেছেন। জনগণের ভোটাধিকার ও তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে মরহুম অবদান রেখে গেছেন। তার জীবনের সকল নেক আমল কবুল করে আল্লাহ তাকে জান্নাতে উচ্চ মর্যাদা দান করুন।

আমরা মরহুমের শোক সন্তপ্ত পরিবার পরিজনের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি এবং দোয়া করছি আল্লাহ তাদের এ শোক সহ্য করার তাওফিক দান করুন।’’ অপর এক বিবৃতিতে শোক প্রকাশ করেছেন জামায়াতের সিনিয়র নায়েবে আমীর মাওলানা আবুল কালাম মুহাম্মদ ইউসুফ ও নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুস সুবহান।

আব্দুস সাত্তারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য সাবেক এমপি অধ্যক্ষ শাহ মুহাম্মদ রুহুল কুদ্দুস, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, জামায়াতে ইসলামীর খুলনা অঞ্চলের পরিচালক মুহাদ্দিস আব্দুল খালেক, খুলনা মহানগরীর ভারপ্রাপ্ত আমীর মাওলানা আবুল কালাম আজাদ, খুলনা অঞ্চল টিম সদস্য মাওলানা আজিজুর রহমান, উত্তর জেলা আমীর মাওলানা এমরান হোসাইন, দক্ষিণ জেলা আমীর মাওলানা আ খ ম তমিজ উদ্দিন, মহানগরী নায়েবে আমীর অধ্যাপক আব্দুল মতিন ও মাস্টার শফিকুল আলম, দক্ষিণ জেলা নায়েবে আমীর মুফতি আব্দুল কাদের ও এডভোকেট লিয়াকত আলী, মহানগরী সেক্রেটারি অধ্যাপক মাহফুজুর রহমান, উত্তর জেলা সেক্রেটারি মুন্সি মিজানুর রহমান, দক্ষিণ জেলা সেক্রেটারি মাওলানা গোলাম সরোয়ার, মহানগরী সহকারী সেক্রেটারি এডভোকেট মুহাম্মদ শাহ আলম, খান গোলাম রসূল, এডভোকট জাহাঙ্গীর হোসাইন হেলাল, প্রিন্সিপাল শেখ জাহাঙ্গীর আলম, এডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান, কাজী তামজিদ আলম, এডভোকেট আব্দুল মজিদ, মুন্সি মঈনুল ইসলাম, অধ্যাপক মিয়া গোলাম কুদ্দুস, খুলনা মহানগরী ইসলামী ছাত্রশিবির সভাপতি সাইদুর  রহমান ও সেক্রেটারি গাজী মোর্শেদ মামুন, উত্তর জেলা সভাপতি আজিজুল ইসলাম ফারাজী ও সেক্রেটারি শাহাদাৎ হোসেন সোহেল, দক্ষিণ জেলা সভাপতি মো. আবু তালেব, খুলনা সদর থানা আমীর অধ্যাপক জিএম শফিকুল ইসলাম, সোনাডাঙ্গা থানা আমীর অধ্যাপক নজিবুর রহমান, দৌলতপুর থানা আমীর বিএম জসিম উদ্দিন, খালিশপুর থানা আমীর মো. আজিজুর রহমান, খানজাহান আলী থানা আমীর আজিজুর রহমান স্বপন। বিবৃতিতে তারা মরহুমের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমেবদনা জ্ঞাপন করেন।

মসজিদ মিশন : বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন, ইসলামী চিন্তাবিদ মুফতি মাওলানা আবদুস সাত্তার সাহেবের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বাংলাদেশ মসজিদ মিশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা যাইনুল আবেদীন ও জেনারেল সেক্রেটারি ড. মাওলানা খলিলুর রহমান আল-মাদানী মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনা করেন।

শোকবাণীতে তারা বলেন, জাতি ইসলামী আন্দোলনের একজন যোগ্য সৈনিককে হারাল। তিনি আজীবন ইসলাম প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করে গেছেন। মহান আল্লাহ তার সকল দ্বীনি খেদমত কবুল করে জান্নাতুল ফেরদাউস নসীব করেন। তারা মরহুমের শোক সন্তপ্ত পরিবার-পরিজন, ভক্ত, অনুরক্তদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান এবং দোয়া করেন আল্লাহ তাদের এই শোক সহ্য করার তৌফিক দান করুন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ